বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দশমিনায় নিজ বাবাকে জবাই করে হত্যাকারী কুখ্যাত ছেলে ইমরান গ্রেফতার কলাপাড়ায় অবৈধ ০৩টি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ডসহ ০২জন ভূয়া ডাক্তারকে কারাদণ্ড. সমাজসেবায় গোল্ডেন এ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত হলেন কালকিনির নবগ্রামের ইউপি চেয়ারম্যান বিভূতী ভূষন কসবায় খিরনাল প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে এড. মতিয়র রহমান তালুকদার  স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন  কালিয়াকৈরের  কবর থেকে লাশ চুরির চেষ্টা কালিয়াকৈরে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের   শাখা কমিটি গঠন  আখাউড়ায় ভূমির মালিকানা নিয়ে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় তারাগন গ্রামে সৈয়দ শাহ্ শেরআলী জাঁহারৌশন (রহঃ) সুন্নিয়া মাদ্রাসার নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে আখাউড়া আগরতলা সড়কে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় এক পথচারী নিহত 

৫ নং ওয়ার্ডবাসীর সমর্থন ও ভালবাসায় সিক্ত হলেন মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৪৭ সময় দর্শন
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধিঃ
 স্বাধীন বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা তথা গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে..
কসবা-আখাউড়া গণমানুষের অভিভাবক, সত্য ন্যায়ের প্রতীক’ মাননীয় আইনমন্ত্রী জননেতা জনাব অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এম পি মহোদয়ের বিশ্বস্ত সেনাপতি আধুনিক ও সমৃদ্ধ আখাউড়ার স্বপ্নদ্রষ্টা এবং পৌরসভা উন্নয়নের অগ্রযাত্রার দুর্বার কান্ডারী “পৌরপিতা জনাব মোঃ তাকজিল খলিফা কাজলকে আসন্ন নির্বাচনে #হ্যাট্রিক মেয়র হিসেবে জয়যুক্ত করার উদ্দেশ্যে পৌর এলাকার ৫নং ওয়ার্ড সর্বসাধারণের আয়োজিত নাগরিক সমাবেশ শতভাগ সফল।
০৯ই নভেম্বর ২০২০,
#রোজ সোমবার সন্ধ্যায় আখাউড়া পৌর এলাকার ৫নং ওয়ার্ডের সর্বসাধারণ কতৃক আয়োজিত এক নাগরিক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। ওয়ার্ড আঃ সভাপতি শ্রী হীরালাল সাহার সভাপতিত্বে এবং সাংবাদিক সমির চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় এ নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত নাগরিক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপবিষ্ট ছিলেন মাননীয় মেয়র মহোদয় জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল।
অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জনাব মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি ডঃ এডঃ আবদুল্লাহ ভূইয়া বাদল, সাধারণ সম্পাদক কাজী নাছির উদ্দীন খাদেম লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন হায়দার, পৌর যুবলীগ সভাপতি মনির খান, সাধারণ সম্পাদক কাউছার ভূইয়া, উপজেলা যুবলীগ সদস্য আবু কাউছার ভূইয়া, রাজেশ সাহা, শাহীন মোল্লা, আওয়ামীলীগ নেতা কাদিরুজ্জামান, কাদির মোল্লা, দঃ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন, পৌর কাউন্সিলর আতিকুর রহমান, মিলি আক্তার, ফাতেমা বেগম, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাব উদ্দিন বেগ শাপলু, সহ-সভাপতি আশিকুর রহমান নাইম, যুবরাজ শাহ রাসেল, তানভীর শাহ মন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তজিবুর রহমান, শুস্ময় খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মাহি, উপজেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসাইন জিকু সহ উপজেলা, পৌর শাখা ও ওয়ার্ড পর্যায়ের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, যুব মহিলালীগের অসংখ্য নেতাকর্মী সহ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সংগঠন, শ্রমজীবী একতা সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মীরা।
আধুনিক, সমৃদ্ধ, উন্নত এবং পৌরবাসির স্বপ্নের আখাউড়া নগরী গড়তে কেনো পুনরায় তৃতীয় মেয়াদে মাননীয় মেয়র- জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজলকে প্রয়োজন?
#এমন প্রশ্ন তুলে সমগ্র পৌর নাগরিক সমাজের উদ্দেশ্যে সময়োপযোগী গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যের মাধ্যমে  বাস্তব এবং উল্লেখযোগ্য বিষয়বস্তু পর্যালোচনা করে সাবলীল বক্তব্য রাখেন অত্র ওয়ার্ড বাসিন্দা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব গাজী আবদুল মতিন।
পাশাপাশি স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা নাগরিক সমাবেশে সমাবিষ্ট শীর্ষ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, সিনিঃ সিটিজেন/প্রবীণদের পাশাপাশি উপস্থিত বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নারী-পুরুষ, তরুণ-যুবক সহ হাজারো নাগরিকবৃন্দের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন মেয়র পদে রায় প্রত্যাশি একাধিক কথিত প্রার্থীদের নাগরিক সমাজে এবং জনমতের, জনমনের অবস্থান।
অত্র ওয়ার্ডের সর্বস্তরের হাজারো নাগরিকবৃন্দ এবং বিভিন্ন স্থরের দলীয়, সামাজিক, ব্যবসায়ী সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত নাগরিক সমাবেশ রূপান্তরিত হয় এক মহা জন-সমাবেশে।
#আখাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও অত্র ওয়ার্ড বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব গাজী আবদুল মতিন আরো বলেন!
স্থানীয় সাংসদ মাননীয় #আইনমন্ত্রী জননেতা আনিসুল হকের আশীর্বাদপুষ্ট আখাউড়া পৌরসভার দুই বারের নির্বাচিত বর্তমান মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল উন্নয়নের কোনো ত্রুটি রাখেনি, জনসেবায় করেনি বিন্দুমাত্র কৃপণতা।মাননীয় আইনমন্ত্রী মহোদয়ের উন্নয়নের অগ্রগতির ধারাবাহিকতায় সততা, নিষ্ঠা ও বিশ্বাস্থতার সাথে নিরলস পরিশ্রমের পৌরসভা কতৃক পৌর মেয়র হিসেবে প্রতিটি ওয়ার্ড, মহল্লার নাগরিক সমাজের যুগ যুগান্তরের অপূর্ণ এবং সময়ের প্রতিটি দাবী পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে সর্বক্ষেত্রে আমাদের সুযোগ্য মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল।
বীর মুক্তিযোদ্ধা আরো বলেন!
শুধু পৌর এলাকায় নয়, সমগ্র আখাউড়া উপজেলা জুড়ে শিক্ষিত বেকার হাজারো তরুণ-তরুণীর সরকারি, বেসরকারি চাকুরী সহ অন্যান্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন ইতিপূর্বেই। তা আপনাদের সকলের জানা নিশ্চয়। হাজারো পরিবারকে করেছেন আত্মনির্ভরশীল, আর্থিক  সচ্ছল এবং স্বাবলম্বী। তবে কেনো আমরা পৌরবাসি আসন্ন নির্বাচনে বিকল্প চিন্তা করবো? আমরা কি পাগল, যে নিজেদের উন্নয়ন এবং উন্নতির শিখরে কোড়ল মারবো। প্রশ্ন-ই আসেনা বিকল্প চিন্তা চেতনার।
#একজন মানসিক রোগী সহ একাধিক ব্যক্তিকে দেখলাম ব্যানার পোস্টারে লিখিছেন আসন্ন নির্বাচনে যোগ্য কিংবা নতুন মুখ দেখতে চাই। আমি তাদেরকে খোলা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলাম, তারা কি একটি যৌক্তিক কারণ দেখাতে পারবেন?  আমাদের ১ম শ্রেনীর নাগরিক মর্যাদা প্রদানের সুযোগ্য মেয়র তাকজিল খলিফা কাজলের কোথায়- কিসের ত্রুটি? কি প্রয়োজনে, কিসের স্বার্থে বা আশায় আমরা পৌরবাসি বিকল্প চিন্তা করবো। আমরা আখাউড়া পৌরবাসি সেই ৩য় শ্রেণিতে নেই, আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে আমরা এখন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ১ম শ্রেনীর নাগরিক। সুতরাং সোনার ডিমপাড়া হাস জবাই করে সোনার ক্ষণি পাবার আশা করার মত বোকা এখন পৌরবাসি নই। জানবেন কি করে থাকেন তো বনে বনে, জনসাধারণের আড়ালে আবডালে কিছু বানোয়াট- ভিত্তিহীন কথাবার্তা নিয়ে।
#ইতিহাসের সফল নগরপিতা তাকজিল খলিফা কাজলের বিকল্প হিসেবে কাদের নিয়ে ভাববেন? ইতিমধ্যে যারা দলীয় মনোনয়নের দাবীতে এদিক সেদিক ছুটোছুটি করছে তাদের নিয়ে! তাদের যোগ্যতা, দক্ষতা এবং নাগরিক সমাজের অবস্থান নিয়ে সত্যি আমি বিব্রত। আমি পৌরসভার একজন নাগরিক হিসেবে তাদের মেয়র হওয়ার কোনো যোগ্যতাই দেখিনা, তারা আদৌও মেয়রের যোগ্য হয়েছে কি আপনারাই বিবেচনা করে নিবেন।।
আখাউড়া পৌরসভা প্রতিষ্ঠাকালীন নির্বাচনে দলীয় সহযোগিতায় ৩য় শ্রেণির পৌরসভার ১ম মেয়র নির্বাচিত হয় আজকের দৌড়ঝাপ করা কথিত প্রার্থী জনাব নূরুল হক ভূইয়া। তিনি সেই সময় ১ম মেয়াদেই টানা নয় বছর মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন এবং পৌরসভাকে ৩য় শ্রেণীতেই রেখেছিলেন। আমরা পৌরবাসির কতটুকু উন্নতির কথা ভাবলে এমনটা সম্ভব আপনারা বলুন।অতপর তিনি পৌরসভার ২য় নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নে ২০১১ সালে পুনরায় মেয়র প্রার্থী হলেন, তৎকালীন সংসদ সদস্যের অনুরোধে আমি নূরুল হক ভূইয়ার পক্ষে মাঠে কাজ করলাম। জনসংযোগের মাধ্যমে পৌরবাসির কাছে নূরুল হক সাহেবের জন্য ভোট চাইতে গেলাম, আপত্তিকর এবং লজ্জাজনক পরিস্থিতির স্বীকার হলাম। ভোটাররা উনার সাথে কথা বলতেই রাজি নন। প্রতিনিয়ত লজ্জাজনক পরিস্থিতিতে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করেছি ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে, আর বার বার মনে হচ্ছিলো ছি!ছি! আমাদের সংসদ সদস্য কার পক্ষে কাজ করার জন্য আমাকে ব্যক্তিগত ভাবে সুপারিশ করলো। যার সাথে ভোটাররা কথাই বলেনা। নির্বাচন সম্পন্ন হল ফলাফল পেলাম। টানা নয় বছরের রানিং মেয়র নূরুল হক ভূইয়া ৫ম স্থানের অধিকারী হলেন। এমন অপমানজনক অবস্থা কোনো রানিং জনপ্রতিনিধির আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে বিরল।
আসুন আরেক মেয়র প্রার্থীর প্রসঙ্গে!
মোবারক হোসেন রতন, সে আমার সম্পর্কে ভাতিজা। তাকে এবং তার ভাই সরকারি কর্মকর্তা রাব্বিকে আমি স্পষ্ট ভাবে বলে দিয়েছি, রতনের এখনো মেয়র হওয়ার মত সময় হয়নি, শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং সামাজিক অবস্থান কোনোটাই সমৃদ্ধ নয়। মেয়র নির্বাচন নিয়ে ধপ্টা-ধপ্টি না করার সুপরামর্শ দিয়ে বলেছি নির্বাচন বড় কঠিন ব্যাপার। পৌর নির্বাচন নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে অন্য কিছু করুক এবং পৌরবাসির সার্বিক উন্নতি ও কল্যাণের স্বার্থে বর্তমান সফল মেয়রের পক্ষে থেকে কাজ করার উদার্ত আহবান জানাই।
মানসিক রোগীর কথায় আসুন!
তিনি কে, সুদূর আমেরিকা থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প এর খেলাফত নিয়ে এসেছেন উনার নাম জনাব মোহাম্মদ আলী ভূইয়া। ইতিমধ্যে পোস্টারিং করছেন, তিনি নাকি জনগণের মনোনীত মেয়র প্রার্থী। তার একটি বাস্তব ইতিহাস আপনারা শুনুন!
#আপনারা জানেন আমি বাসুদেব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলাম। আমি বাসুদেব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচন করার উদ্দেশ্যে প্রচার প্রচারণা করছি, এই মোহাম্মদ আলী আমার বিরুদ্ধাচার করতে আক্রোশপ্রসূত চেয়ারম্যান নির্বাচন করলো তার সর্বোচ্চ অবস্থান থেকে। সে প্রাণপণে চেষ্টা করে বাসুদেব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ভোট পেয়েছিলো ৫৩ না ৬৩ টি। বড্ড হাস্যকর বিষয়, সে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছে আজকের আধুনিকায়নের স্পর্শনীয় ১ম শ্রেণির পৌরসভার মেয়র পদে। আপনারা নিশ্চয় জানেন সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে সে কিরূপ পাগলামি করেছেন ড্রোনাল্ড ট্রাম্প। আর এই মোহাম্মদ আলীও ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতোই আধা পাগল, মানসিক রোগী। তাকে নিয়ে বিচার বিশ্লেষণ করার মত বৃথা সময় আমরা পৌরবাসির নেই- তাই আবার এমন উন্নয়নমুখী গুরুত্বপূর্ণ সময়ে।
কথিত প্রার্থীদের বিস্তারিত বাস্তবতা বলে বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী আবদুল মতিন সাহেব আরো বলেন!!
আমরা পৌরবাসির গর্বের ধন, সফল মেয়রের কাছে আমাদের কোনো চাওয়া পাওয়া নাই। সে জানে আমাদের মনের খবর, আমাদের কখন কি প্রয়োজন’ কি করলে আমরা শান্তিপূর্ণ এবং নির্ভেজাল জীবনযাপন করতে পারবো।
তবে আখাউড়া বাসির পক্ষ থেকে আমার একটি দাবী রয়েছে আমরা কসবা-আখাউড়া উন্নয়ন মহানায়ক মাননীয় #আইনমন্ত্রী জননেতা আনিসুল হক আনিস ভাইয়ের নিকট। এই দাবী রইলো স্নেহের ছোট ভাই পৌরপিতা তাকজিল খলিফা কাজলের মাধ্যমে। আমরা আখাউড়া বাসি যুগের পর যুগ যে দাবী নিয়ে বিভিন্ন মহলে ছুটাছুটি করেও যা পাইনি! তা হল গ্যাস ব্যবস্থা।
আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এডভোকেট সিরাজুল হক বাচ্চু মিয়া সাহেবের সুযোগ্য উত্তরসূরী আমাদের সংসদ সদস্য মাননীয় আইনমন্ত্রী আনিস ভাইয়ের পক্ষ্যেই সম্ভব আমাদের এই গ্যাসের দাবী পূরণ করা।
একজন আনিসুল হক কসবা-আখাউড়ায় বার বার জন্মায় না, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক কসবা-আখাউড়া বাসির শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ অর্জন। তিনি আমাদের গ্যাস ব্যবস্থা করলে আখাউড়ার ইতিহাসের পাতায় পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিখে রাখবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম এবং জনম-জন্মান্তর।
#উক্ত নাগরিক সমাবেশে স্বাগত শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ডঃ শ্রী ভজন চন্দ্র দেব, সিনিঃ সিটিজেন শ্রী নিকুঞ্জ চন্দ্র ঘোষ, পৌর আওঃ সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন হায়দার, উপজেলা যুবলীগ সদস্য খাইরুল বাশার রিপু, রাজেশ সাহা, মুক্তিযুদ্ধা সন্তান নূরে আলম সিদ্দিকী, যুবনেতা দীপংকর ঘোষ নয়ন, ইসমাইল হোসেন রুমেল, ডঃ সজিত রায় সাহা অত্র ওয়ার্ড এর বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নাগরিকবৃন্দ।
জন-সমাবেশে রূপান্তরিত একটি সফল নাগরিক সমাবেশ সম্পন্ন হওয়ার পর থেকে সমগ্র পৌর নগরী জুড়ে সর্ব নাগরিক মহলে অপ্রতিরোধ্য জয়ধ্বনির পূর্বাভাস পাচ্ছেন বলে মন্তব্য করছেন সিনিয়র সিটিজেন এবং সুশীল নাগরিক মহল।
বিজ্ঞ এ নাগরিক মহল আরো মন্তব্য করেন! পৌরবাসি বর্তমান মেয়র- জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজলের পক্ষে একক সমর্থনের ব্যাপারে আপোষহীন এবং সদা সোচ্চার। এমতাবস্থায় কেউ পোস্টার ছিড়ে, বা অযৌক্তিক এবং ভিত্তিহীন কথাবার্তা বলে কেনো ভাবেই সচেতন নাগরিক মহলের চোখে ধুলো দিয়ে কিংবা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের আশায় ওট পেতে থাকা সুযোগ সন্ধানীদের নেহায়েত মুর্খতা এবং বরবরতা ব্যাতিত আর কিছু নয়।
উপস্থিত অন্যান্য নাগরিক বৃন্দ বলেন!
আমাদের স্বপ্নের আধুনিক এবং সমৃদ্ধ আখাউড়া গড়ার শক্তিশালী মনোভাব ও দৃঢ় অঙ্গীকার নিয়ে আসন্ন নির্বাচনে আমাদের আস্থাবান, দক্ষ এবং সুযোগ্য মেয়র তাকজিল খলিফা কাজলকে হ্যাট্রিক মেয়র নির্বাচিত করবো যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলার মাধ্যমে। এতে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই, নেই কোনো বিকল্প চিন্তাভাবনা। প্রতিষ্ঠাকাল হইতে অদ্যাবধি সার্বিক বিচার বিবেচনা করলে আমরা পৌর নাগরিক সমাজ নিঃসন্দেহে বলতে পারি তাকজিল খলিফা কাজল #যোগ্য, সফল এবং শ্রেষ্ঠ মেয়র আখাউড়া পৌরসভার ইতিহাসে।
৫নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনসাধারণ এ নাগরিক সমাবেশশের মাধ্যমে মর্মে মর্মে প্রমান করেছে, তারা মাননীয় মেয়র মহোদয়ের প্রতি সর্বত্র, সর্বোচ্চ আস্থাশীল, ঐক্যবদ্ধ এবং কৃতজ্ঞ।
#মাননীয় মেয়র জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল, প্রধান অতিথির বক্তব্যে অশ্রুসিক্ত চোখে সমাবিত সবার উদ্দেশ্যে বলেন! আপনারা আমার জন্য অতীতেও নির্বাচন করেছেন নিজেদের সবটুকু শ্রম এবং সাধ্য উজার করে দিয়ে। কিন্তু আমরা এইভাবে দলে দলে মিছিল নিয়ে প্রকাশ্যে, উল্লেখযোগ্য জনসমাগম করে কোনো মিটিং কিংবা প্রচারণা করতে পারিনি। আজকে আনন্দে আমার চোখে জল এসে গিয়েছি, এই জল কষ্টের নয়! এই জল আবেগের নয়!! এই জল বুকভরা উজার করা ভালোবাসা এবং গর্বের জল। আমার একজীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া আপনি/আপনাদের নিঃস্বার্থ ভালোবাসা। আমার এই জীবনের আর কিচ্ছু চাওয়ার নেই, শুধু আপনাদের এই ভালোবাসা টুকু নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই, নেতা হিসেবে নয়! পৌরসভার মেয়র হিসেবে নয়!! বেঁচে থাকতে চাই বড়দের স্নেহ এবং ছোটদের হৃদয় উজাড় করা নিঃস্বার্থ শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার সেই কাজল হয়ে।
সভার সভাপতি শ্রী হীরালাল সাহা সমাপনী বক্তব্যে বলেন! আমাদের আখাউড়া পৌরসভার দুই বারের নির্বাচিত এবং জননন্দিত মেয়র জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল ভাইয়ের একক সমর্থন আমরা ৫নং ওয়ার্ডবাসির অন্তরে অক্ষুণ্ণ ও অমলিন। #আমরা অত্র ওয়ার্ডের সর্বস্তরের মানুষ একবাক্যে বিশ্বাস করি, আসন্ন পৌর নির্বাচনে আমরা অত্র ওয়ার্ডবাসির মত সমগ্র পৌর এলাকার  জনমনে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বী ও অপ্রতিরোধ্য হ্যাট্রিক মেয়র অসাম্প্রদায়িক এবং শান্তিপূর্ণ আখাউড়ার নিরহংকারী পৌরপিতা জননেতা মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল।
বাদল আহাম্মদ খান                                                                                      দেশের কন্ঠ ২৪.কম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
সহযোগিতায় রায়তা-হোস্ট ডিজাইন : SmartiTHost
desharkontho-lite