সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন

ভালুকা  বিধবা আয়েশা সন্তান নিয়ে দীর্ঘ নয়মাস যাবৎ প্রতিবেশীদের অত্যাচারে স্বামীর রেখে যাওয়া বাড়িতে উঠতে পারেনি 

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৮৯ সময় দর্শন
ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহে ভালুকা উপজেলার ধলিকুড়ী গ্রামের  মৃত সোনামিয়ার স্ত্রী সন্তান দীর্ঘ নয়মাস স্বামীর রেখে যাওয়া বসত, বাড়িতে উঠতে পারে না, জৈনক প্রতিবেশীদের অত্যাচারে, প্রতিবেশীরা হলো,মকগুল খা,ফখরুল, আলাল, হালিম, নছুফকির,। আয়েশা খাতুন জানান  এরা ভয়াবহ মারধর করে, আমার বাড়ি হতে আমাদের বের করে দেয়, নিরুপায় হয়ে অন্যবাড়িতে সন্তানদের নিয়ে অতি কষ্টে জীবন যাপন করিতেছি।আমার বাড়ির জমিটি ১৯৮৩ সনে মরহুম শামছুল হক সরকার ,  হতে  ৩১০ দাগে ৭০ শতাংশ ক্রয় করে দীর্ঘ ৩৭ বছর যাবৎ ভোগ দখলে আছি।এবং কি বিভিন্ন সময় খুন, জখমের হুমকী প্রদান করে । তার একমাত্র কারন জমি আত্ন্যসাৎ করা। আমরা স্হানীয় ভাবে বিচার প্রার্থী হলেও কোন সমাধান আসে নাই।এবং আমার ছেলেকেও  গরু চুর হিসাবে, বানানোর চেষ্টা করে,যার প্রমান স্হানীয় চেয়ারম্যান। আমি কোন  স্হানীয় বিচার না পেয়ে সাংসদ  সদস্য  কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ (ধনু)  বরাবর ২১/০৭/০২০ ইং সুপারিশ নিয়ে চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ সভাপতির দ্বারে, দ্বারে ঘুরেও কোন সমাধান পাইনি। পরে  আমার ছেলে দনু মিয়াকে দিয়ে ভালুকা মডেল থানায় সাধারন  ডাইরী করানো হয়। , যাহার নং ২৮২ তাং ৮/৫/০২০ ইং বস্ত বাড়িতে উঠার জন্য পুলিশ সুপার বরাবরে অভিযোগ দেয় আমার ছেলে দনু মিয়া ৩/০৬/০২০ ইং।, বিবাদীগন আমাদের কে উচ্ছেদ করার পরিকল্পনায় আরো বেশি চড়াও হন। আমরা ৯৯৯ ফোন করেও নিজ বস্ত বাড়িতে উঠতে পারিনি। এবং  কি আমাদের বাড়ি হতে তাড়ানোর চেষ্টায় লিপ্ত হন বিবাদীগন ।বিবাদীগন দলবদ্ধ হয়ে ২৩/০৫/০২০ ইং আমাদের উপর এলোপাথাড়ি ভাবে আঘাত করেন,সোহাগকে মেরে ফেলার জন্য দা দিয়ে কুপ মারিয়া মাথায় মারাত্মক, কাটা রক্তাক্ত জখম করে।পরে গুরুত্বর আহত সোহাগ মিয়া, গিয়াস উদ্দিন,  হাসিনা খাতুন কে , রক্তাক্ত অবস্হায়  উদ্ধার করে,   ভালুকা হাসপাতালে নিয়া ভর্তি করাই। এবং কি  ভালুকা মডেল থানায় মামলা দায়ের করি।যাহার নং ৩৫২/০২০
তাং ৭/৯/০২০ ইং। এদিকে বিবাদী মগুল মিয়া বলেন বাড়িটি    মৃত সোনামিয়ার,হালিম মিয়া জানান আমাদের কে বিভিন্ন সময় মিথ্যা মামলা  দিয়ে হয়রানি করে, তাই আমরা বাড়িতে উঠতে দিব না। নছুফকির জানান আমি জমি   বিক্রি করেছি  এস,এ খতিয়ান ২৮৩, দাগ নং ৩৪০, জমির পরিমান  ৫০ শতাংশ,  ওই জমির গাছ,বাঁশ আমি কেটেছি। সোনামিয়ার ছেলে গিয়াস উদ্দিন মনু মিয়া বলেন, গাছ,বাশঁ   বিক্রি,নগদ অর্থ,সোনার চেইন,বস্ত বাড়ির ক্ষয়,ক্ষতি সহ  আমাদের প্রায় – ৬লক্ষ৬১ হাজার,  টাকার ক্ষতি সাধন করেছে।এই বিষয়ের নিউজের প্রতিবেদক কে স্হানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রহমান তালুকদার জানান বিবাদীগন আইন অমান্যকারী, আমার জানা মতে বাড়িটি মৃত সোনামিয়ার, গাছ,বাশঁ, সকল কিছুর বর্তমানে মালিক আয়েশা ওতার সন্তানেরা। আমি এর সঠিক বিচার কামনা করি।
আঃ কাদের আকন্দ                                                                                   দেশের কন্ঠ ২৪.কম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
সহযোগিতায় রায়তা-হোস্ট ডিজাইন : SmartiTHost
desharkontho-lite