সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০৬:২৫ অপরাহ্ন

গলাচিপায় সেই স্বামী, স্ত্রীসহ পালিত কন্যা হত্যা মামলার প্রধান আসামি শহিদ গ্রেফতার

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৪ সময় দর্শন

 নিজস্ব সংবাদদাতাঃ

গত ০২রা আগস্ট- ২০১৭ সনে পটুয়াখালী গলাচিপা উপজেলার আমখোলা ইউনিয়নের ছৈলাবুনিয়া গ্রামে স্বামী, স্ত্রীসহ পালিত কন্যা হত্যা মামলার প্রধান আসামি শহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ꫰

সোমবার (১২ অক্টোবর-২০২০ ইং) সকালে পটুয়াখালী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার ওই আসামিকে গ্রেফতারের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মইনুল হাসান সংবাদ সম্মেলনে জানান, গত ০২রা আগস্ট- ২০১৭ সনে গলাচিপা উপজেলার আমখোলা ইউনিয়নের ছৈলাবুনিয়া গ্রামে নির্জন ঘরে বিভৎস অবস্থায় তিনজনের মৃতদেহ পাওয়া যায়। নিহত দেলোয়ার মোল্লা (৬৫), তার স্ত্রী পারভীন বেগম (৬৫) এবং পালিত কন্যা কাজলী আক্তারকে (১৫) বসত ঘরে অজ্ঞাতনামা হত্যাকারীরা নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

এঘটনায় নিহতের বড় ভাই ইদ্রিস মোল্লা বাদী হয়ে গত ০৩রা আগস্ট- ২০১৭ সনে অজ্ঞাত নামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

একই ঘটনায় নিহত দেলোয়ার মোল্লার বোন পিয়ারা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১ থেকে ১৫ জনকে আসামি করে গলাচিপা আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আদালত মামলা ২টি সংযুক্ত করে পুলিশকে তদন্ত করার জন্য আদেশ দেন। মামলা দায়েরের পর থেকেই পুলিশ গুরুত্ব সহকারে মামলাটি তদন্ত শুরু করে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৯ অক্টোবর ঢাকার পল্লবী থানাধীন বাউনিয়াবাধ এলাকা থেকে মোহাম্মদ আবু রায়হানের কাছ থেকে নিহত কাজলী আক্তারের খোয়া যাওয়া নোকিয়া ১২৮০ মডেলের মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে তখন আবু রায়হান জানান, তার বাড়ি বরিশাল জেলার হিজলা থানা এলাকায়। ২০১৭ সনের আগস্ট মাসে তার ফুপুর ননদের স্বামী শহীদ তাকে দেয়।

পুলিশ সুপার আরও জানান, শহিদ তার নাম পরিবর্তন করে জাহাঙ্গীর নামে একটি ভাড়া বাসায় প্রথম স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করছিলেন এবং অটো রিক্সা চালাতেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শহিদ হত্যার বিষয় স্বীকার করেছেন। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গ্রেফতার শহিদুল ইসলামকে আজ সোমবার (১২ অক্টোবর) আদালতে হাজির করা হবে।

উল্লেখ্য: পূর্ব থেকেই পারিপার্শ্বিক সাক্ষ্য বিচার বিশ্লেষনে শহীদ প্রধান অভিযুক্ত হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় মামলার তদন্তকারী অফিসার গলাচিপা থানার ইন্সপেক্টর( তদন্ত) মোঃ হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে সাভার থেকে গত ১০ অক্টোবর-২০২০ ইং সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় একটি ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এম.জাফরান হারুন                                                                                                   দেশের কন্ঠ ২৪.কম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
২০২০© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ*
সহযোগিতায় রায়তা-হোস্ট ডিজাইন : SmartiTHost
desharkontho-lite